কালিগঞ্জ উপজেলায় নবযাত্রা’র আয়োজনে “বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ দলের সভা” অনুষ্ঠিত

শেখ আতিকুর রহমান, স্টাফ রিপোর্টার ::

“আমেরিকান সরকারের আন্তজার্তিক উন্নয়ন সংস্থা (ইউএসএআইডি) এর ফুড ফর পিস (টাইটেল-২) খাদ্য সহায়তা কার্যক্রমের অর্থায়নে ‘নবযাত্রা’ একটি পঁাচ বছর মেয়াদী প্রকল্প; যা ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে শুরু হয়েছে এবং ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে শেষ হবে। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এর নেতৃত্বে নবযাত্রা প্রকল্প অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম, উইনরক ইন্টারন্যাশনাল এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পটি বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিম উপকূলীয় খুলনা জেলার দাকোপ ও কয়রা এবং সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ ও শ্যামনগর উপজেলার ৮,৫৬,১১৬ জন উপকার ভোগীর জন্য বাস্তবায়িত হচ্ছে। স্থানীয় বেসরকারি সংস্থা (এনজিও), সুশীলন নবযাত্রা কর্মসূচীর সুশাসন ও সামাজিক দায়বদ্ধতা, জেন্ডার, এবং গ্র্যাজুয়েশন কার্যক্রমের সঞ্চয়ী দল সম্পর্কিত কার্যাবলী বাস্তবায়ন করছে।

ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ সুশীলন’র সাথে সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলায় সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ও বিভিন্ন কমিটি’র সাথে বাল্যবিবাহ, নারী নির্যাতন ও জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক কার্যক্রম, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের সাথে যুবদের লিংকেজ তৈরি করাসহ অন্যান্য কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ে যে সকল সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা বাল্য বিয়ে এবং নারীর প্রতি সহিংসতা হ্রাসকরণে কাজ করছে তাদের সাথে লিংকেজ স্থাপন ও কাজ করার কৌশল এবং বাল্য বিয়ে ও নারীর প্রতি সহিংসতা হ্রাসকরণে কর্ম পরিকল্পনা শেয়ার এবং ফলোআপ করার করার উদ্দেশ্যে কালিগঞ্জ উপজেলায় ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ইং তারিখে সকাল ১০:০০ ঘটিকায় উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ দলের সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় সদস্য সচিব হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব নাসরীন জাহান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত), কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শেখ নাজমুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা।

সভায় অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন জনাব আনোয়ার হোসেন, সভাপতি, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি, কালিগঞ্জ, জনাব সুকুমার দাশ বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক, কালিগঞ্জ প্রেস ক্লাব, কালিগঞ্জ, শেখ সাইফুল বারী সফু, সভাপতি, প্রেস ক্লাব, কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা, লীনা হেলেনা গোমেজ, এমসিএইচএম অফিসার (এ্যাকটিং ফিল্ড অফিস ম্যানেজার), নবযাত্রা প্রকল্প, কালিগঞ্জ, জনাব আব্দুর রাজ্জাক শাহ, উপজেলা কোঅর্ডিনেটর, নবযাত্রা প্রকল্প (সুশীলন)সহ আরো অনেকে। উক্ত সভায় বিভিন্ন ইউনিয়ন ও উপজেলা হতে বিশিষ্ট ব্যক্তিগণ উপস্থিত ছিলেন। উক্ত সভাটি সঞ্চালনা করেন জনাব লাইলী আরজুমান খানম (লায়লা), জেন্ডার অফিসার, নবযাত্রা প্রকল্প, কালিগঞ্জ।

সভায় উপস্থিত সদস্যবৃন্দ নবযাত্রা কর্ম-এলাকায় বাল্য বিবাহের বর্তমান চিত্র, বাল্যবিবাহ ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের সফলতার অভিজ্ঞতা বিনিময়, বাল্য বিবাহ ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে চ্যালেঞ্জসমূহ এবং চ্যালেঞ্জ উত্তোরণের অভিজ্ঞতা বিনিময়, বাল্য বিবাহ ও নারী নির্যাতন বন্ধে যুবদেরকে সমৃক্ত করার অভিজ্ঞতা বিনিময়, বাল্য বিবাহ ও নারী নির্যাতন বন্ধে জরুরী প্রয়োজনে হেলপ নম্বরে ফোন করা, ইউনিয়ন পারিবারিক বিরোধ নিরোসন, নারী ও শিশু উন্নয়ন কমিটির সাথে আলোচনা, মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর সাথে নিয়মিত যোগাযোগ (এসএমসি মিটিং, অভিভাবক সভা), যে সকল সরকারী ও বেসরকারী সংস্থাসমূহ বাল্য বিবাহ ও নারী নির্যাতন নিয়ে কাজ করে তাদের সাথে সমন্বয় সাধন করে কাজ করা, যুবদেরকে বাল্য বিবাহ ও নারী নির্যাতন বন্ধ বিষয়ক কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত করা এবং যুব ক্লাবগুলোর সাথে সমন্বয় সাধন, উপজেলা মহিলা ও শিশু উন্নয়ন কমিটি, উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিস এবং উপজেলা সমাজসেবা অধিদপ্তর সাথে যোগাযোগ ও সমন্বয়ের মাধ্যমে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের কিভাবে কাজ করা যায় এবং উক্ত কার্যক্রমসমূহ বাস্তবায়নে কমিটির ভূমিকা কেমন হওয়া দরকার এবং কমিটি প্রনীত কর্ম পরিকল্পনায় বাল্য বিবাহ প্রতিরোধের পাশাপাশি নারী নির্যাতনের বিষয়গুলো সংযুক্তকরণসহ নির্ধারিত আলোচ্যসূচী অনুযায়ী আলোচনা করা হয়। তাছাড়াও আন্তর্জাতিক নারী দিবস-২০২০ উদ্যাপন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

জনাব নাসরীন জাহান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত), কালিগঞ্জ বলেন,“ অল্প বয়সে বিয়ে হওয়ার কারণে নারীদের স্বাস্থ্য ঝুকি থাকে, নারী নির্যাতন বেড়ে যায় এবং পারিবারিক বিভিন্ন জটিলতার কারণে নারীদের আত্মহত্যার প্রবণতা বেড়ে যায়। তাই বাল্য বিবাহ প্রতিরোধের জন্য আমাদের তৃণমুল পর্যায়ে সচেতনতা সৃস্টির জন্য কাজ করতে হবে। বাল্যবিবাহ ও নারী নির্যাতন বন্ধের জন্য ১০৯, ৯৯৯ এবং ৩৩৩ নম্বর ব্যবহার সম্পর্কে জনগণের মাঝে ব্যাপক প্রচার করতে হবে। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ক আইন অভিভাবকদের মধ্যে প্রচার করতে হবে। আমরা সবাই মিলে বিদ্যালয় পর্যায়ে, উঠান বৈঠকে, কমিউনিটি ক্লিনিকে আলোচনা করবো। বাল্য বিবাহ বন্ধের জন্য যে চ্যালেঞ্জগুলো আছে তা নিয়ে কালিগঞ্জ উপজেলার সুযোগ্য ইউএনও মহোদয়ের সাথে আমরা আলোচনা করবো। নবযাত্রা সরকারের পাশাপাশি বাল্য বিবাহ ও নারী নির্যাতন বন্ধে নিবিড়ভাবে কাজ করছে। এ জন্য নবযাত্রাকে ধন্যবাদ।”

শেখ নাজমুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা বলেন,“নবযাত্রা বাল্যবিবাহ বন্ধের জন্য দায়িত্ব নিয়ে আমাদের উপজেলায় কাজ করে যাচ্ছে। এ জন্য নবযাত্রাকে ধন্যবাদ জানাই। নবযাত্রা চলে যাওয়ার পরও আমরা নিজ নিজ জায়গা হতে দায়িত্ব নিয়ে বাল্য বিবাহ বন্ধের জন্য কাজ করবো। প্রতিটি মসজিদে খুতবায় বাল্য বিবাহ বন্ধের জন্য সচেতনতামূলক বার্তা প্রচারের জন্য আমাদেরকেই উদ্যোগ নিতে হবে।

সভায় অতিথিবৃন্দসহ ১২ টি ইউনিয়ন থেকে আগত সদস্যগণ বাল্য বিবাহ ও নারী নির্যাতন বন্ধে তাদের অগ্রগতি, চ্যালেঞ্জ ও ভবিষ্যত কর্ম পরিকল্পনা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। অভিভাবক সভায়, এসএমসি সভায়, ছাত্রছাত্রীদের সাথে, ইউনিয়ন কোঅর্ডিনেশন মিটিংএ, উঠান বৈঠকে, বিভিন্ন ক্লিনিকের মাসিক মিটিংএ, উপজেলায় এনজিও কোঅর্ডিনেশন মিটিংএ, পাড়ায় অভিভাবকদের সাথে, গ্রাম আদালতে, সরকারী ও বেসরকারী বিভিন্ন প্রশিক্ষণে, উপজেলা পর্যায়ে শিক্ষকদের মিটিং, ধমর্ীয় সভাতে, জুম্মা নামাজের আগে খুতবার সময়সহ আরো অন্যান্য সময় বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ নিয়ে আলোচনা করা হবে। সভায় উপস্থিত সকলে নবযাত্রা প্রকল্পের অনুপস্থিতিতে বাল্য বিবাহ ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে বর্তমানে চলমান কার্যক্রমসমূহ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হন।

পরিশেষে সকলের অনুমতিক্রমে এবং আর কোন গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা না থাকায় জনাব নাসরীন জাহান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত), কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে উপজেলা গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ দলের সভা সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

You might also like More from author