নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন

মোঃ নূরে আলম সিদ্দিকী, বিশেষ প্রতিনিধি

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর পর এবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নামও নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত হলো। বিখ্যাত রাশিয়ান লেখক সের্গেই কোমকভের নেতৃত্বে লেখকদের একটি সংগঠন রুশ প্রেসিডেন্টের নাম নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করে নোবেল কমিটিতে পাঠিয়েছে। লেখকদের দাবি, বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের অবদান কিছু কম নয়।

তাঁরা এও দাবি করেছেন, বিশ্বের শান্তি রক্ষার্থে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর তুলনায় অনেক বেশি উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট। তাই ২০২০ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কারের যথার্থই দাবিদার তিনি। উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৩ সালেও আরো একবার নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছিলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

উল্লেখ্য, নোবেল কমিটির তরফ থেকে নির্ধারিত কিছু নির্দিষ্ট শর্ত মেনে বিশ্বের যে কোনো ব্যক্তি অপর কোন ব্যক্তিকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করে তাঁর নাম নোবেল কমিটির কাছে পাঠাতে পারেন। ২০২০ সালের নোবেল প্রাপকদের নাম আগামী ৯ই অক্টোবর ঘোষণা করতে চলেছে নোবেল কমিটি। ফলে অনেকেই নোবেল কমিটির কাছে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য তাঁদের পছন্দের ব্যক্তির নাম মনোনীত করে পাঠাচ্ছেন।

নোবেল কমিটি সূত্রে জানা যায়, তাঁদের কাছে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য ইতিমধ্যেই ৩০০টি মনোনীত নাম এসে পৌঁছেছে। যার মধ্যে, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ইসরাইলের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠা করার প্রচেষ্টা করার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মনোনীত হয়েছেন। নরওয়ের সাংসদ ক্রিশ্চিয়ান টাইব্রিং জিজেডে ট্রাম্পের নাম মনোনীত করেছেন। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের মধ্যে শান্তি চুক্তি স্থাপন করায় ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে মনোনীত করেছেন ইটালির নর্দান লিগ পার্টির সাংসদ পাওলো গ্রিমোলদি। এবার সেই তালিকায় ভ্লাদিমির পুতিনের নাম যুক্ত হলো।

You might also like More from author