শ্যামনগরে ড্রীম সেচ্ছা সেবীর পানির প্লান্টের ঘর ভাঙ্গচুর ও দখলের পায়তারা

মো জামিনুর রহমান ব্যুরো চীফ,শ্যামনগর: শ্যামনগরে উপজেলার বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নে ড্রীম সেচ্ছা সেবীর পানির প্লান্টের ঘর ভাঙ্গচুর ও দখলের পায়তারা।
অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে যে, বুড়িগোয়ালীনি ইউনিয়নের ড্রীম সেচ্ছা সেবীর পানির প্লান্ট নির্মানে গত দেড়বছর আগে ড্রীম সেচ্ছা সেবীর সংগঠনের নামে সভাপতি রফিকুল ইসলাম মৌজা-পেড়াকাটলা, জেলএল নং-১১৫, এসএ খতিয়ান নং-৮, দাগ নং-১২০১, মোট জমির পরিমান ৮৯শত জমি ক্রয় করেন। জমি ক্রয়ের পর ড্রীম সেচ্ছা সেবীর পানির প্লান্ট নির্মান করার লক্ষে জমিটি উপযুক্ত করেন। ড্রীম সেচ্ছা সেবী সংগঠন উপক‚লীয় এলাকায় সুপীয় খাবার পানির কষ্ট দূরীভ‚ত করার জন্য গত ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে পানির প্লান্ট এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের শুভ উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদ সদস্য এসএম জগলুল হায়দার এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ.ন.ম আবুজার গিফারী। ড্রীম সেচ্ছা সেবীর পানির প্লান্ট নির্মান কার্যক্রম চলমান অবস্থায় স্থানীয় ডেইজি আক্তার শিখা নামের একজন মহিলা ড্রীম সেচ্ছা সেবীর সংগঠনের নামে ৮৯শত জমির মালিক বলে দাবী করেন। গত ১২ জানুয়ারী ২০২১ তারিখে ১০ টা দিকে ডেইজি আক্তার শিখার সন্ত্রাসী বাহিনী কলবাড়ী গ্রামের নজুরুল ইসলামের পুত্র ওলিউর রহমান ও লেয়াকাত আলীর পুত্র মাছুম বিল্লাহ সহ কিছু সংখ্যক ড্রীম সেচ্ছা সেবীর পানির প্লান্টের ঘর ও সাইবোর্ড ভাঙ্গচুর করে দখলের পায়তারা চালায়। ঐ সময়ে ড্রীম সেচ্ছা সেবী সংগঠন বাঁধা প্রদান না করে প্রশাসনকে অবগতকে করে। ঘটনাস্থলে শ্যামনগর থানা পুলিশের এএসআই মনির গেলে ডেইজি আক্তার শিখা কাগজপত্র দেখে বসাবসির মাধ্যমে মিমাংসার প্রস্তাব দেয়।
ড্রীম সেচ্ছা সেবীর সংগঠনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, আমি আমার ড্রীম সেচ্ছা সেবী সংগঠনের নামে কাগজপত্র অনুযায়ী জমি ক্রয় করেছি । কিন্তু ডেইজি আক্তার শিখা ড্রীম সেচ্ছা সেবীর সংগঠনের ৬ জন সদস্যের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে গায়ের জোরে জমি দখলের পায়তারা সহ হয়রানী করছে।
এ বিষয়ে ডেইজি আক্তার শিখার ০১৭১৫৬৬২২০০ মোবাইলে ফোন দিলে ১ঘন্টা ধরে বিজি থাকায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর লেখক থেকে আরও